রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৪৫ অপরাহ্ন

এভারকেয়ারে সফল এনজিওপ্লাস্টি

সৈকত
  • আপডেট করা হয়েছে রবিবার, ৯ মে, ২০২১
  • ২৯ বার পড়া হয়েছে

বোয়ালখালী উপজেলার বাসিন্দা বদিউল আলম। ৫০ বছর বয়সী এ প্রবাসী সম্প্রতি ফিরেছেন ওমান থেকে। গেল মঙ্গলবার হঠাৎ তীব্র বুকে ব্যথা নিয়ে ভর্তি হন এভারকেয়ার হসপিটাল চট্টগ্রামে। ডায়াবেটিস আক্রান্ত বদিউল আলমের পরীক্ষা নিরীক্ষায় হার্টে তিনটি ব্লকও ধরা পড়ে। কিন্তু তার হার্টের পরিস্থিতি এমন ছিল যে, ওপেন হার্ট সার্জারি ছাড়া উপায়ও নেই। তবুও এ জটিল রোগীকে শুধুমাত্র এনজিওপ্লাস্টির মাধ্যমে স্টোন বা রিং বসানোর কাজ সম্পন্ন করেছেন এভারকেয়ার হসপিটাল চট্টগ্রামের কার্ডিয়াক চিকিৎসকরা। মাত্র পাঁচদিনের মাথায় সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে বাড়িও ফিরেছেন বদিউল আলম।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১০ সালে প্রথম বদিউল আলমের হার্টে ব্লক ধরা পড়ে। ওই সময়ে তিনি ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে স্টোন বা রিং বসান। এরমধ্যে এ বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি ছুটিতে দেশে ফিরেন তিনি। গত মঙ্গলবার বুকে তীব্র ব্যথা অনুভব করায় ভর্তি হন এভারকেয়ার হসপিটালে। যেখানে তার জটিল এ কার্ডিয়াক চিকিৎসা সম্পন্ন করেন সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. জহির উদ্দিন মাহমুদ ইলিয়াছ।

এ চিকিৎসক বলেন, রোগীর এনজিওগ্রাম করে দেখা যায় বদিউল আলমের মূল রক্তনালীর তিনটিতেই জটিল ব্লক রয়েছে। যার একটি ছিল ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ, আরেকটি ৯০ শতাংশ এবং অন্যটি ৯৯ শতাংশ। কিন্তু রোগীর হার্ট পাম্পিং বা কার্যক্ষমতা ছিলো মাত্র ৩০ শতাংশ। এমন জটিল রোগীর সাথে সাথে ব্লক খুলে না দেয়া হলে মৃত্যুই বেশি হয়ে থাকে। তবুও রোগীর সাহসিকতায় ভরসা রেখে এমন জটিল অস্ত্রোপচার করা হয়। যা সফলও হয়েছে।

বদিউল আলম বলেন, ‘অনেক দিন যাবৎ আমি ডায়াবেটিসে ভুগছি এবং সম্প্রতি বুকে তীব্র ব্যথা নিয়ে এভারকেয়ার হসপিটালে ভর্তি হই। হাসপাতালটির ব্যাপারে আগে শুনে থাকলেও, নিজে এসে তাদের উন্নত ব্যবস্থাপনা, আন্তর্জাতিক মানের স্বাস্থ্যসেবা এবং ডাক্তার-নার্সসহ সকল কর্মীর আন্তরিক ব্যবহারে আমি সত্যিই মুগ্ধ। ডা. জহির উদ্দিন মাহমুদ স্যারের সাথে যোগাযোগের পর তার পরামর্শে আমি হার্টে রিং পরতে সম্মতি জানাই এবং স্বল্প সময়ের মধ্যে, স্বল্প খরচে আমার সুচিকিৎসা সম্পন্ন হয়। বর্তমানে আমি ভালো আছি এবং আগের চেয়ে অনেক সুস্থ অনুভব করছি।’

উল্লেখ্য, এভারকেয়ার হসপিটাল চট্টগ্রামে রয়েছে অত্যাধুনিক এবং বিশ্বমানের ক্যাথ ল্যাব এবং কার্ডিয়াক অপারেশন থিয়েটার। যেখানে ২৪ জন দক্ষ হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ, হৃদরোগ সার্জন এবং ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিশেষজ্ঞগণের সমন্বয়ে হৃদরোগের যাবতীয় জটিল রোগের চিকিৎসা সুলভমূল্যে সম্পন্ন করা হয়ে থাকে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
themesba-lates1749691102