রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ১০:০১ পূর্বাহ্ন

করোনামুক্তি চেয়ে প্রার্থনা

সৈকত
  • আপডেট করা হয়েছে শুক্রবার, ১৪ মে, ২০২১
  • ২১ বার পড়া হয়েছে

কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ জামে মসজিদে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (১৪ মে) সকাল ৮টায় ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। নামাজ শেষে সারা পৃথিবীর মুসলমানদের হেফাজত ও করোনামুক্তি চেয়ে আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করা হয়। এ সময় দোয়া পরিচালনা করেন কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব আলহাজ্ব মওলানা মাহমুদুল হক।

সকাল সাড়ে ৮টার কিছু আগে শুরু হয় মোনাজাত। ১০ মিনিটব্যাপী চলা মোনাজাতে বাংলাদেশসহ বিশ্ববাসীকে করোনা থেকে মুক্তি পেতে আল্লাহর কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন। আল্লাহর কাছে দু’হাত তুলে দোয়া করেন ছোট-বড় সব বয়সী মুসল্লিরা। পরে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় এবং দুনিয়া ও আখেরাতের শান্তি কামনা করা হয়।

এদিকে, কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ জামে মসজিদে মোট ৩টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি জামাত শুরু হওয়ার আগে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মুসল্লিদের মসজিদে ঢোকানো হয়। বাসা থেকে অজু করে মাস্ক পরে ও জায়নামাজ নিয়ে ঈদের জামাতে অংশ নেন মুসল্লিরা।

সকাল সাড়ে ৮টায় শুরু হয় দ্বিতীয় জামাত। যার ইমামতি করেন মওলানা হাফেজ আব্দুল কাইয়ুম। এরপর এরপর সকাল ৯টা অনুষ্ঠিত হয় তৃতীয় জামাত। যার ইমামতি করেন মওলানা আব্দুল আজিজ। এ ছাড়া জেলাজুড়ে পাড়া-মহল্লার মসজিদগুলোতেও ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে। করোনার কারণে এবারও কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না।

শুক্রবার ঈদের প্রধান জামাতে মুসল্লীদের সঙ্গে ঈদের নামাজ আদায় করেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ। তিনি নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হয়ে সাংবাদিক জানান; প্রতিটি মসজিদে মুসল্লিরা সামাজিক দূরত্ব ও মাস্ক ব্যবহার করে ঈদের নামাজ আদায় করছে। কক্সবাজারবাসীর পক্ষ থেকে যে সহযোগিতা পাচ্ছি সত্যিই তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। পবিত্র ঈদুল ফিতরের এই দিনে পৃথিবীতে করোনামুক্তির প্রার্থনা করছি।

এদিকে শুক্রবার (১৪ মে) পবিত্র ঈদুল ফিতর। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর সারা দেশে উদযাপন হচ্ছে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। তবে করোনা ভাইরাসের কারণে এবার ঈদ অনেকটাই ভিন্নভাবে উদযাপন করা হচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
themesba-lates1749691102