সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৩:০৪ অপরাহ্ন

ছাত্রলীগ নেতাকে গুলির পর এবার ছুরিকাঘাত, থানায় মামলা

সৈকত
  • আপডেট করা হয়েছে বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১
  • ২৭ বার পড়া হয়েছে

কক্সবাজারের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ ফয়সালকে ২০১৭ সালে ১৩ জুন গুলি করেছিল শহরের বাহারছাড়ার ত্রাস সৃষ্টিকারী মোবারক আলী। সেই ঘটনায় কয়েকমাস কারাভোগ শেষে পুনরায় দখলবাজি, চাঁদাবাজী, মাদক ব্যবসা সহ নানা অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে মোবারক আলী ও তার সহযোগিরা। এসব অপকর্মে মোবারক আলী’র সাথে যুক্ত হয়েছে বাহারছড়া’র আরেক চিহ্নিত ছিনতাইকারী একাধিক মামলার আসামী জেল ফেরত আশিকুল ইসলাম।

সর্বশেষ তারা গত রবিবার রাত ১২ টার দিকে নিজ এলাকার যুবক শহীদুর রহমান বাবুকে হত্যার উদ্দেশ্যে ছুরিকাঘাত করে মারাত্বকভাবে আহত করে। এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার স্মারক নং (৬০২৮৩/৩০/০৬/২০২১)। আহত বাবু কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সদর থানায় দায়েরকৃত মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, গত রবিবার রাত ১২ টার দিকে শহরের ঝাউতলা হোটেল রেঁনেসার সামনে মধ্যম বাহারছড়ার আজিজুর রহমানের ছেলে শহীদুল রহমান বাবুকে (২৮) ছুকিকাঘাত করে মারাত্বকভাবে আহত করে একই এলাকার আসমত আলীর ছেলে মোবারক আলী (২৮), আবদুল করিমের ছেলে আশিকুল ইসলাম (২৭) ও টেকনাফের মোস্তাক আহম্মদের ছেলে নুর নবী।

ঘটনার বর্ণনায় উল্লেখ করা হয়, ব্যবসায়ীক কাজ শেষে বাবু বাড়ি ফেরার সময় মোবারক ও তার অপর দুই সহযোগি বাবুর গতিরোধ করে। কিছু বুঝে উঠার আগেই পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তারা বাবুকে মারধর শুরু করে। তারা বাবুকে মোটরসাইকেলে তুলে অপহরণের চেষ্টা চালায়। বাবু প্রতিরোধ করতে চাইলে আশিকুল ইসলাম ও নুর নবী বাবুর হাত চেপে ধরে। আর মোবারক আলী খুন করার জন্য পকেট থেকে ধারালো ছুরি বের করে বুকে আঘাত করে। পরে ওই ছুরি বুকের পাশে হাতে লাগে। ওই সময় বাবুর চিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা সরে পড়ে। আহত বাবুকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

মোবারক আলীর বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে জি-আর ৬০১/২০২৭ ইং, জি-আর ৮৩৯/২০১৮ (মাদক দ্রব্যের), জি-আর ৮৩৮/২০১৭ ইং (অস্ত্র মামলা)। একইভাবে ছিনতাইকারী আশিকুল ইসলামেরর বিরুদ্ধেও রয়েছে একাধিক মামলা। জি-আর (৯১৭/২০১৪ ইং)। বাবু কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর থানায় মামলা দায়ের করায় বাবু ও তার পরিবারকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে হামলাকারীরা।

এ অবস্থায় নিরাপত্তার জন্য তারা প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন। এ ব্যাপারে এলাকার সচেতন মহল বলছেন মোবারক ও তার সহযোগীরা গুলি, ছুরিকাঘাত, দখলবাজি, চাঁদাবাজি সহ একের পর এক অপরাধমূলক কর্মকান্ড করে গলেও প্রশাসন দৃশ্যমান কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছেনা। তাদের কারণে নষ্ট হচ্ছে এলাকার যুব সমাজ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
themesba-lates1749691102