বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৯:০৩ পূর্বাহ্ন

জেলায় হঠাৎ জ্বরের প্রকোপ

সৈকত
  • আপডেট করা হয়েছে রবিবার, ২০ জুন, ২০২১
  • ৯ বার পড়া হয়েছে

কক্সবাজার জেলায় হঠাৎ বৃদ্ধি পেয়েছে জ্বরের প্রকোপ। আগের মতো গাঁয়ে জ্বর উঠাকে এখন স্বাভাবিক মনে করছেন না অনেকে। তাই আতংক বিরাজ করছে অনেকেই মধ্যে। জ্বর, মাথা-ব্যাথা, সর্দি, কাশি নিয়ে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল সহ সংশ্লিষ্ট জেলার বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভর্তি রয়েছেন অনেক রোগী। গত বৎসর থেকে গাঁয়ে জ্বর উঠা, মাথাব্যাথা হলেই করোনার উপসর্গ আতংক জেলাবাসীর মধ্যে। তবে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ভাষ্য মতে, আবহাওয়ার পরিবর্তনের ফলে অনেকের জ্বর উঠতে পারে।

সব জ্বর বা মাথা ব্যাথা করোনার লক্ষণ নয়। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষের মধ্যে জ্বর বা মাথা ব্যাথা হলেই করোনার ভয় ছড়িয়ে পড়ছে।

হাসপাতালের বেডে শুয়ে থাকা মিটন পাল বলেন, চাকরির সুবাধে ঢাকায় অবস্থান করার সময় গত এক সপ্তাহ ধরে জ্বর হয়েছে। ঢাকা থেকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে এসে ভর্তি হয়েছি। প্রতি তিন ঘন্টা পর পর গায়ে জ্বর উঠছে। মাথা ব্যাথাও রয়েছে যথেষ্ট। অনেক ভয়ে করোনা পরীক্ষা দিয়েছি। কিন্তু পরীক্ষায় নেগেটিভ এসেছে।

একইভাবে পাশে থাকা ব্যবসায়ী শাহেদ জানান, গত চারদিন ধরে ছেলেকে ভর্তি করেছি। সর্দি এবং কাশি বেড়ে যাওয়ায় হাসপাতাল ভর্তি করতে হয়েছে। পরিবারের সদস্যরাও সর্দি, জ্বর ও মাথা ব্যাথায় আক্রান্ত।

চিকিৎসকরা জানান, আবহাওয়ার পরিবর্তন হওয়ার কারণে সর্দি-জ্বরে আক্রান্তের হার বেড়ে গেছে। স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় গত ১০-১৫ দিন ধরে জ্বর, সর্দি ও কাঁশিতে আক্রান্ত রোগী তুলনামূলকভাবে বেশি ভর্তি হচ্ছেন। সর্দি-কাশি।

মেডিসিন বিশেষজ্ঞরা জানান, প্রচণ্ড গরমের পর টানা বৃষ্টি হয়েছে বেশ ক’দিন ধরে। এই কারণেই তাপমাত্রার পরিবর্তন ঘটেছে। তাপমাত্রার পরিবর্তন অনেকের শরীর মানিয়ে নিতে পারে না। তাই অনেকে জ্বর-কাশি, সর্দিজনিত রোগে ভুগছেন। যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তারাই বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন।

বঙ্গবন্ধু মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পরিষদ কেন্দ্রিয় কমিটির বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক ও কক্সবাজার জেলা শাখার উপদেষ্টা দিল মো. শাহা আলম জানান, জ্বর, কাশি, সর্দি, মাথা ব্যাথা মূলত ফ্লুজনিত রোগ। তবে অনেকে এই রোগ করোনার উপসর্গ ভেবে সাধারণ মানুষের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। মূলতঃ এই রোগ হওয়ার সাথে সাথে অনেকে ভয় পাচ্ছেন করোনার উপসর্গ মনে করে।

এই রোগ করোনা রোগের সাথে মিল থাকায় অনেকেই করোনা পরীক্ষাও করাচ্ছে। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে পজেটিভ হলেও বেশিরভাগ নেগেটিভ আসছে। তবে চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা, এই রোগে আতংকিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। ডাক্তারের পরামর্শ মতে ঔষুধ সেবনের পাশাপাশি সচেতন হওয়া দরকার।

সংবাদটি শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
themesba-lates1749691102