বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১১:২৩ পূর্বাহ্ন

মগবাজারের বিস্ফোরণে নাশকতার আলামত মেলেনি : আইজিপি

সৈকত
  • আপডেট করা হয়েছে মঙ্গলবার, ২৯ জুন, ২০২১
  • ১০ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর মগবাজারে রাখিনীড়ে বিস্ফোরণের ঘটনাটি ‘একমুখী’ উল্লেখ করে পুলিশ মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, এটা মনে হচ্ছে গ্যাস থেকে এ বিস্ফোরণ ঘটেছে। যদি কোনও নাশকতার বিষয় থাকতো তাহলে বিস্ফোরণের ব্যাপকতা চারদিকেই ছড়িয়ে পড়তো। তারপরও এই ঘটনা তদন্তে ফায়ার সার্ভির পাশাপাশি পুলিশ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করবে।

সোমবার (২৮ জুন) সকালে মগবাজারে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে এসে বেনজীর আহমেদ সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। এসময় ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম, পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) প্রধান মনিরুল ইসলাম, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) প্রধান এ কে এম হাফিজ আক্তার প্রমুখ তার সঙ্গে ছিলেন।

আইজিপি জানান, বাংলাদেশ পুলিশের তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে বোম ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যদের নিয়ে। ফায়ার সার্ভিসের সহায়তা নিয়ে চলবে তদন্ত কাজ।

বেনজীর আহমেদ আরও বলেন, বিস্ফোরণস্থলের আশপাশে গ্লাসের ভাঙা টুকরো ছাড়া অন্য কিছু আমরা পাইনি। ভেতরে মিথেন গ্যাস রয়েছে। ফায়ার সার্ভিস তাদের যন্ত্রপাতি নিয়ে আসলে ভবনের ভেতরে আরও গ্যাস রয়েছে কিনা- তা জানা সম্ভব হবে।

সাংবাদিকদের আইজিপি আরো বলেন, বিস্ফোরণ কেন হল- সে বিষয়ে আমরা কাজ করছি, পরবর্তী সময়ে এ বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে বলা সম্ভব হবে।

এসময় গ্যাস সিলিন্ডার নিয়মিত মেইনটেন্সের বিষয়েও কথা বলে আইজিপি। তিনি বলেন, গ্যাস সিলিন্ডার মেনটেনেন্স না করা হলে এটা একটি বোমে পরিণত হয়।

প্রসঙ্গত, রবিবার (২৭ জুন) সন্ধ্যায় রাজধানীর মগবাজারে একটি তিনতলা ভবনে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে দুই শতাধিক আহত ও ৭ জন নিহতের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলে অসংখ্য যানবাহন ও ভবন এই বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ৭৯ আউটার সার্কুলার রোডের ‘রাখিনীড়’ নামের ওই ভবনের নিচতলায় ছিল গ্র্যান্ড কনফেকশনারি, বেঙ্গলমিট ও শর্মা হাউজের দোকান। দোতালায় সিঙ্গারের শোরুম ও তিনতলায় রয়েছে অনলাইন নিউজপোর্টাল ‘অপরাজেয় বাংলা’ এর কার্যালয়। বিস্ফোরণে ভবনটির ভেতর থেকে লোহার গ্রিল, আসবাবপত্রসহ বিভিন্ন অংশ ছিটকে এসে রাস্তায় পড়েছে। দুটি বাসও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
themesba-lates1749691102