বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১১:২০ পূর্বাহ্ন

শাপলাপুর বাজারে সরকারি সম্পত্তি দখল করে নির্মিত হচ্ছে ভবন

সৈকত
  • আপডেট করা হয়েছে সোমবার, ২১ জুন, ২০২১
  • ১৬ বার পড়া হয়েছে

মহেশখালীর শাপলাপুর বাজারে ৫ কোটি টাকা মূল্যের সরকারি জমি জবর দখল করে নির্মাণ করা হচ্ছে বহুতল ভবন। স্থানীয় প্রভাবশালী নুরুল ইসলাম ও মৌলভী গফুরের নেতৃত্বে এই ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। তারা প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ মুখ খোলছেন না এমন বক্তব্য দিয়েছেন বাজারের ব্যবসায়িরা। দ্রুত উদ্ধার না করলে জমিটি চিরদিনের জন্য বেহাত হওয়ার আশংকা করছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও জনপ্রতিনিধিরা।

মহেশখালী শাপলাপুরে সরকারি সম্পত্তির মালিক যেন এই প্রভাবশালীরাই। এখন শাপলাপুর বাজারে ৫ কোটি টাকা মূল্যের ৬৩ শতক জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করছে তারা। এমন নিয়মেই চলছে মহেশখালীর শাপলাপুর বাজারসহ মুকবেকী এলাকা। সুযোগ পেলেই এই চক্রটি দখল করে নিচ্ছেন সরকারি জমি।

শাপলাপুর বাজারে জমি দখলের বিষয়টি স্বীকার করে শাপলাপুর ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন মাহমুদ বলেন, সরকারের এই মূল্যবান সম্পত্তিতে বহুতল ভবন নির্মিত হলে বাজারে আর কোন ফাঁকা জায়গা থাকবে না। প্রশাসনের পক্ষ তেকে একাধিকবার ভবন নির্মাণে নিষেধ করা হলেও কর্ণপাত না করেই কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করে তড়িগড়ি করে ভবন নির্মাণ করার কাজ এগিয়ে নিচ্ছে। এই সরকারি সম্পত্তি দ্রুত উদ্ধার করা না হলে তা চিরদিনের জন্য বেহাত হয়ে যাবে।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায় এই জমি ‘ক’ শ্রেণীর অর্পিত সম্পত্তি। কেউ মালিকানা দাবী না করায় তা খাস জমি হিসেবে চিহ্নিত করেছে সরকার। বর্তমানে বন্দোবস্তি দেওয়া বন্ধ থাকায় জবরদখলকারীরা সুকৌশলে এক ভাই আরেক ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করে আদালতে। তারা সরকারের বিরুদ্ধে একটি আদেশ নেওয়ার চেষ্টা করে।

আদালতে সরকার পক্ষ মোকাবেলা করলে ওই মামলাটি খারিজ করে দেন আদালত। এরপরই জোরপুর্বক ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করে দেয় নুরুল ইসলাম ও মৌলভী গফুর গং। এই জমি ছাড়াও মুকবেকী এলাকায় মৃত আছত আলীর পুত্র নুরুল ইসলাম, মৌলভী গফুর, বজল আহমদ ও নুরুল হক অর্পিত সম্পত্তি দখল করে বহুতল ভবন তৈরী করেছে। এছাড়া উপজেলা প্রশাসন ওই এলাকায় একটি আশ্রয়াণ প্রকল্প গ্রহন করতে চাইলে এই দখলকারীরা দিনে দিনে কবরস্থান ও হাফেজখানা তৈরী করে সরকারি ওই প্রকল্প আর বাস্তবায়ন হতে দেয় নি।

এছাড়া শাপলাপুরে আরো অনেক অর্পিত সম্পত্তি ফসলী জমি তারা দখল করেছে। বাজারের ব্যবসায়িরা জানিয়েছেন মুকবেকীর মৃত আছত আলীর পুত্রদের এমন দখলবাজীতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। বিগত সময়ে শাপলাপুর বাজারেই প্রকাশ্যে দিবালোকে খুন সহ অসংখ্য সন্ত্রাসি কার্যকলাপ করেছে আছত আলীর ছেলেরা।

সর্বশেষ শাপলাপুর বাজারে দীর্ঘদিন ফাঁকা থাকা এই জমিটি হঠাৎ বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করেছে। বিষয়টি প্রশাসনকে অবহিত করলেও তারা কোন তোয়াক্কাই করছে না। সম্প্রতি মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারি কমিশনার ভূমি সরেজমিনে দেখে ভবন নির্মাণ না করতে নিষেধ করে তাদের। পরে প্রশাসনের লোকজন স্থান ত্যাগ করার পরেই আবার কাজ শুরু করেছে। এখন ভবনের ১ম তলার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে এই দখলবাজরা।

মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাহফুজুর রহমান জানিয়েছেন, সরকারি সম্পত্তিতে ভবন না করার জন্য একাধিকবার নিষেধ করা হয়েছে নুরুল ইসলাম ও মৌলভী গফুর গং কে। এরপরও তারা কাজ বন্ধ না করলে সরকারি সম্পত্তি রক্ষায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
themesba-lates1749691102